Nov 5, 2017
26 Views
Comments Off on নির্বাচনে না এলে বিএনপি অস্তিত্ব হারাবে: ওবায়দুল কাদের
0 0

নির্বাচনে না এলে বিএনপি অস্তিত্ব হারাবে: ওবায়দুল কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘বিএনপি আগামী নির্বাচনে যদি না আসে, তাহলে তাদের অস্তিত্ব হারিয়ে যাবে। বিএনপি মুসলিম লীগের মতো সংকুচিত হয়ে যাবে। আর বিশ্বমিডিয়ায় দেখানোর জন্যই পরিকল্পিতভাবে বিএনপি ফেনীতে সাংবাদিকদের ওপর হামলা করেছে।’

শনিবার চট্টগ্রামে প্রয়াত আওয়ামী লীগ নেতা আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবুর স্মরণসভায় এ কথা বলেন তিনি।

আনোয়ারা উপজেলার হাইলধর ইউনিয়নে বশরুজ্জামান উচ্চবিদ্যালয়ের মাঠে এই স্মরণসভা অনুষ্ঠিত হয়।

বিএনপি অবশ্যই নির্বাচনে যাবে- দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমেদের এমন বক্তব্যের প্রসঙ্গ টেনে ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, ‘এটা কি মওদুদের মনের কথা নাকি বিএনপির মনের কথা? আমি মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাহেবের কাছে জানতে চাই। কারণ বিএনপির মুখে এক কথা, মনে আরেক কথা থাকে।’

হামলার জন্য আওয়ামী লীগকে দায়ী করা প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, ‘ফেনীতে যদি হামলা আ’লীগ করে, তাহলে সাংবাদিকদের ওপর করবে কেন? আর এমন একটি হামলা যেখানে বিএনপির একজন নেতাকর্মীও আহত হননি। আসলে তারাই সাংবাদিকদের ওপর হামলা করেছে নিউজ বড় হওয়ার জন্য।’

খালেদা জিয়া বিমানে না গিয়ে কক্সবাজার ও চট্টগ্রামে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির জন্য সড়কপথে গেছেন- এমন অভিযোগও করেন ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, ‘অসুস্থ খালেদা জিয়া বিমানে না গিয়ে ১০ হাজার মানুষকে ত্রাণের প্যাকেট দেওয়ার জন্য চট্টগ্রাম-কক্সবাজারে এসেছিলেন। তিনি পুরোপুরি চট্টগ্রাম-কক্সবাজারের রাস্তা অচল করে দিয়েছেন। কয়েক লাখ রোহিঙ্গার ত্রাণসামগ্রী যাওয়ার পথও তিনি বন্ধ করে দিয়েছিলেন।’

স্মরণসভায় আরও বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম, উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, উপ-দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া এবং সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ এমপি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘খালেদা জিয়ার আগে, সবার আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাই রোহিঙ্গা শিবিরে গেছেন। তখন খালেদা জিয়া লন্ডনে বসেছিলেন।’

লন্ডন থেকে খালেদা জিয়ার ফেরার দিন ঢাকায় বিমানবন্দরে লোকসমাগমের কথা উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘তিনমাস পর লন্ডনের ব্লুপ্রিন্ট নিয়ে খালেদা জিয়া দেশে ফেরেন। ব্লুপ্রিন্ট বাস্তবায়নের প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে খালেদা জিয়া লক্ষ জনতার ঢল নামালেও সেক্ষেত্রে তিনি সাধারণ মানুষের মন জয় করতে পারেননি। এয়ারপোর্ট থেকে ঢাকা মহানগর পুরো অচল করে দেওয়ার জন্যই তিনি এত নেতাকর্মী নামিয়েছিলেন। কিন্তু তাদের দলের মধ্যে শুধু মারামারি-হানাহানি। সেজন্য তারা সেটা সফল করতে পারেনি।’

আখতারুজ্জামান বাবুর স্মৃতিচারণ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘দেশে জাতীয় সমস্যা যখন আসত, তখন বাবু ভাই এগিয়ে আসতেন। দলের বিপদে-আপদে সবসময় বাবু ভাই সবার সামনে থাকতেন। জাতীয় নির্বাচন এলে অনেক প্রার্থীকে তিনি গোপনে টাকা দিতেন। কিন্তু কখনোই তিনি প্রকাশ করেননি।’

এসময় ওবায়দুল কাদের উপস্থিত জনতার কাছে আগামী নির্বাচনে বাবুর সন্তান সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদকে মনোনয়নের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে বলবেন কি না জানতে চান। এ সময় উপস্থিত জনতা স্লোগানের মাধ্যমে তাদের সম্মতি প্রকাশ করেন।

আনোয়ারা উপজেলায় স্মরণ সভা শেষে ওবায়দুল কাদের সড়কপথে কক্সবাজার যান। যাওয়ার সময় দক্ষিণ চট্টগ্রামের চন্দনাইশে কাঞ্চনাবাদ হাইস্কুল মাঠ, সাতকানিয়ার কেরানীহাট, লোহাগাড়ার বটতলী, কক্সবাজারের চকরিয়া এলাকার হারবাং, পৌরবাস টার্মিনাল ও ঈদগাঁতেও পৃথক পৃথক পথসভায় বক্তব্য রাখেন।

বিভাগ:
রাজনীতি

Comments are closed.